৭ বছরের সাজা ভোগের ভয়ে ৩২ বছর পালিয়ে ছিলেন

32
Smiley face

কালাই থানা-পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ১৯৮৯ সালের ২৫ জুন উপজেলার ইটাইল গ্রামের সাত বছরের শিশু মঞ্জুরুল হক অপহৃত হয়। এ ঘটনায় মঞ্জুরুলের বাবা ফজলুল হক বাদী হয়ে কালাই থানায় একটি মামলা করেন। ওই মামলায় আবদুল মতিন ও সাকামুদ্দিনকে আসামি করা হয়। মামলার পর মতিন এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যান। একই বছর আদালত দুজনকে সাত বছর করে কারাদণ্ড দেন। সাত বছর কারাভোগের পর সাকামুদ্দিন ছাড়া পান। তবে মতিনের কোনো হদিস পাচ্ছিল না পুলিশ। অবশেষে তিনি ধরা পড়লেন।

আবদুল মতিন বলেন, তিনি সাজা খাটার ভয়ে পালিয়ে ছিলেন। এত দিন পর তাঁকে গ্রেপ্তার করা হবে, তিনি কখনো ভাবেননি।

কালাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম মালিক প্রথম আলোকে বলেন, আবদুল মতিন সাত বছর সাজা খাটার ভয়ে ৩২ বছর পালিয়ে ছিলেন।


Smiley face