বেশি খেলে করবেন কী?

87
Smiley face

* একটু একটু করে পানি খান। পানি খেলে অতিরিক্ত খাওয়ার ফলে শরীরে যে অতিরিক্ত লবণ জমা হলো, তা ক্ষতি করতে পারবে না। তা ছাড়া হজমেও সহায়তা করবে। কোষ্ঠকাঠিন্য হওয়ার সম্ভাবনা কমে যাবে। যতটা পারবেন নিজেকে হাইড্রেট রাখুন।

* বেশি খেয়ে ফেলার পর কার্বোনেটেড ড্রিঙ্কস বা কোমল পানীয় বাদ দিন। এতে আপনার আরও হাঁসফাঁস লাগবে। ক্যালরিও বাড়বে। তার বদলে এক গ্লাস লেবুপানি বা শসাকুচি ভেজানো পানি খেয়ে নিন।

* রাতের বেলা যদি বেশি খাওয়া হয়ে যায়, তবে পরদিন সকালেও খেতে পারেন লেবু বা শসা ভেজানো পানি। এটা বিস্বাদ লাগলে এতে যোগ করতে পারেন ছেঁচে নেওয়া আদা আর অল্প একটু মধুও। গরম পানি খেতে ভালো না লাগলে সাধারণ তাপমাত্রার পানিতেও তৈরি করে নিতে পারেন এই ডিটক্স। এটি শরীরে থাকা বিষ বা ক্ষতিকর উপাদান কমাবে। তাতে একদিকে যেমন পানির ঘাটতি পূরণ হবে, অন্যদিকে তা বাড়তি ওজন কমাতেও সহায়তা পাবেন। যতটা পারা যায়, ফলের রস খেতে চেষ্টা করুন। তবে অবশ্যই চিনি ছাড়া। প্রয়োজনে মধু খেতে পারেন।

* দুপুরে যদি ভারী খাবার খান, তাহলে রাতের খাওয়া ভুলে যাওয়ার চেষ্টা করুন। চেষ্টা করুন স্যুপ, ফল, সালাদ বা হালকা কিছু খাওয়ার। এসবের সঙ্গী হতে পারে টক দই।

* বেশি খেয়ে ফেলার তিন থেকে চার ঘণ্টা পর হালকা ব্যায়াম করুন। এরপর আপনি ওয়ার্কআউট করতে পারেন। সেটা হতে পারে দৌড়ানো, ওয়েটলিফটিং বা বাস্কেটবল খেলা। এতে শরীরের মেটাবলিজম সিস্টেমকে বুস্ট আপ করা হবে। আর অতিরিক্ত ক্যালরি ঝরে যাবে।

* আপনি যদি ভারী খাবার খান, তাহলে পরের বেলায় এমন খাবার নির্বাচন করুন, যেটা বেশি খেলেও কম ক্যালরি হয়। বেশি খেয়ে আর ভেবে কাজ কী, পরের বেলায় ভেবে খান। ধীরে ধীরে খান। চর্বিযুক্ত খাবার, সাদা আটা, ফ্রেঞ্চ ফ্রাই, চকলেট, আইসক্রিম, চিকেন ফ্রাই—একবেলায় এসব খেলে পরের বেলায় ব্রকলি, সবুজ সালাদ, হালকা স্যুপ, ডাল আর দেশি সবজি ও ফল খান।

সূত্র: ওয়েবএমডি ডটকম


Smiley face