ঘাড়ে ব্যথার চিকিৎসা

124
Smiley face

রোগ হওয়ার আগেই সাবধান হতে হবে। তাই ঘাড়ের পেশি, হাড় ও স্নায়ু ক্ষতিগ্রস্ত হয়, এমন কাজ করা থেকে বিরত থাকুন। অনেকে গাড়িতে ঘুমান। এটি মোটেও ভালো অভ্যাস নয়। গাড়িতে ঘুম এলে অবশ্যই ঘাড়ে সার্ভাইক্যাল কলার পরে নিতে হবে। নিচু বালিশ ও শক্ত বিছানায় ঘুমানোর অভ্যাস করুন। নিয়মিত ঘাড়ের ব্যায়াম করতে হবে। উপুড় হয়ে ঘুমানো উচিত নয়। ঘাড়ে ভারী জিনিস বহন করা ঠিক নয়। অনেকে মজা করে শিশুদের ঘাড়ে উঠিয়ে নেন, এটা ঠিক নয়।

ঘাড়ব্যথার আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ হলো ঘাড়ের ডিস্ক প্রলাপস, স্পাইনের টিবি, মেরুদণ্ডের হাড়ভাঙা বা ফ্রাকচার ইত্যাদি। ঘাড়ব্যথা হলে প্রয়োজনে ঘাড়ের এক্স–রে বা এমআরআই করে রোগ নির্ণয় করতে হবে। তারপর চিকিৎসা।

ঘাড়ব্যথার প্রাথমিক পর্যায়ের চিকিৎসা হলো ঘাড়ে কলার পরা, ব্যথার ওষুধ সেবন করা। পাশাপাশি ফিজিওথেরাপিও নিতে হবে। প্রয়োজনে ঘাড়ে অস্ত্রোপচারও করতে হতে পারে।


Smiley face