‘স্ফিংস’ক্রমশ গলে যাচ্ছে

20
Smiley face

ঐতিহাসিকভাবে যুক্তরাজ্যের সবচেয়ে দীর্ঘস্থায়ী বরফ হিসেবে পরিচিত ‘স্ফিংস’। এ বরফ প্রায় বছরজুড়েই থাকে। সহজে গলে না। কিন্তু কেয়ারনগর্মের দূরবর্তী ব্রেরিয়াচের এ বরফখণ্ড এখন ঘন ঘন গলে যাচ্ছে।

১৮ বছর ধরে এ বিষয়টি বেশি ঘটছে। গত ৩০০ বছরের মধ্যে ৮ বার গলে গেছে এ বরফখণ্ড। এর মধ্যে গত ১৮ বছরের মধ্যে গলেছে চারবার।

তুষারখণ্ড বিশেষজ্ঞ ক্যামেরন বলেন, তুষার গলে যাওয়ার পেছনে জলবায়ু পরিবর্তন একটি কারণ হতে পারে। রেকর্ড অনুযায়ী, স্ফিংস এর আগে ১৯৩৩, ১৯৫৯, ১৯৯৬, ২০০৩, ২০০৬, ২০১৭ ও ২০১৮ সালে সম্পূর্ণ গলে গিয়েছিল।

১৯৩৩ সালের আগে এটি সর্বশেষ ১৭০০ সালের দিকে সম্পূর্ণ গলে গিয়েছিল বলে ধারণা করা হয়। সম্প্রতি স্ফিংস একটি এ-ফোর কাগজের মতো সংকুচিত হয়ে যায় এবং অবশেষে পুরোপুরি অদৃশ্য হয়ে যায়।

দ্য ভ্যানিশিং আইস নামের একটি বইয়ের লেখক ও স্কটল্যান্ডের তুষার বিশেষজ্ঞ ক্যামেরন স্ফিংসের গলে যাওয়ার ঘটনাকে স্কটল্যান্ডের তুষার ও বরফের জন্য দুঃখজনক হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

ক্যামেরন বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে উষ্ণ আবহাওয়ায় বরফ গলে যাওয়ার ঘটনাটিকে যৌক্তিক ব্যাখ্যা বলে মনে হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, পরিস্থিতি লোচাবেরের বেন নেভিস রেঞ্জসহ অন্য স্কটিশ পর্বতমালার উচ্চ তুষারযুক্ত অঞ্চলগুলোকেও প্রভাবিত করছে।

ক্যামেরন আরও বলেন, ‘গবেষণা থেকে আমরা আরও ছোট তুষার ও জমাট বাঁধতে দেখেছি। আশি ও নব্বইয়ের দশকের তুলনায় এখন আরও কম তুষার পড়ছে।’

আন্তর্জাতিক জলবায়ু পরিবর্তন ক্যাম্পেইন গ্রুপ প্রোটেক্ট আওয়ার উইন্টার্সের লরেন ম্যাককালাম বলেছেন, ‘কেয়ারনগর্মসহ অন্যান্য তুষারাবৃত অঞ্চলকে তাপমাত্রা বৃদ্ধি থেকে রক্ষা করা দরকার। আমাদের বাস্তুতন্ত্র ঠিক রাখতে ও বেঁচে থাকার জন্য আমাদের স্বাস্থ্যকর তাপমাত্রা বজায় রাখতে হবে।


Smiley face