বাংলাদেশে সাংবাদিক-মানবাধিকারকর্মীদের ওপর সহিংসতার পূর্ণ তদন্ত চায় যুক্তরাষ্ট্র

15
Smiley face

বিএনপির ঢাকা বিভাগীয় সমাবেশের আগে সাংবাদিক ও মানবাধিকারকর্মীদের ওপর সহিংসতার ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করতে বাংলাদেশ সরকারকে প্রতি এবং সহিংসতা থেকে বিরত থাকতে সব পক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। হোয়াইট হাউসের মুখপাত্রের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স এখবর দিয়েছে।

স্থানীয় গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, গত বুধবার ‘দেশের বৃহত্তম বিরোধী দল’ বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির নেতা-কর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষের সময় পুলিশের গুলিতে ঢাকায় একজনের মৃত্যু ও ৬০ জনের বেশি আহত হন।

‘প্রায় ১০ লাখ মানুষের জমায়েতের পরিকল্পনা নিয়ে’ আজ শনিবারের ঢাকার বিএনপির গণসমাবেশ সামনে রেখে গত মাসে কয়েক হাজার বিএনপি সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে ভয়েস অব আমেরিকাকে উদ্ধৃত করা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা মুখপাত্র জন কিরবি সাংবাদিকদের বলেন, সহিংসতার খবরে যুক্তরাষ্ট্র উদ্বিগ্ন। বাংলাদেশের চলমান ঘটনাগুলোর উপর ‘খুব, খুব ঘনিষ্টভাবে’ পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। কোনো ধরনের ভয়, ভীতি, হয়রানি বা সহিংসতা ছাড়া শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভে নাগরিকদের অংশগ্রহণের অধিকার দিতে বাংলাদেশের প্রতি বরাবরই আহ্বান জানিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্র।

‘আইনের শাসনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে সহিংসতা থেকে বিরত থাকতে আমরা বাংলাদেশের সব দলের প্রকি আহ্বান জানাচ্ছি। আমরা চাই, তাঁরা হয়রানি, ভীতি প্রদর্শন থেকে বিরত থাকুক। কোনো দল বা প্রার্থী যাতে হুমকি না দেয় এবং অন্য কোনো দলের বিরুদ্ধে উসকানি বা সহিংসতা না করে তা নিশ্চিত করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানাই।’

কিরবি বলেন, ‘পুঙ্খানুপুঙ্খ, স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষভাবে সহিংসতার খবরগুলোর পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করার জন্য আহ্বান জানায় ওয়াশিংটন।’

আগামী বছর বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে বিএনপি এই বিক্ষোভ সমাবেশ করছে।


Smiley face