সরকার নিজেই দুর্নীতিগ্রস্ত, তাই নিজেদের ভুল দেখে না: ডা. জাফরুল্লাহ

16
Smiley face

সরকার নিজেই দুর্নীতিগ্রস্ত, তাই নিজেদের ভুল দেখতে পাচ্ছে না বলে মন্তব্য করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। দেশের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের নামে প্রহসন হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

আজ বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ধানমন্ডিতে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে ডা. জাফরুল্লাহ এসব কথা বলেন।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘সরকার তো নিজেই দুর্নীতিগ্রস্ত। তারা নিজেরা অন্ধ হয়ে গেছে। উনারা দেখতে পাচ্ছেন না, ভুলভ্রান্তি দেখতে পাচ্ছেন না। ফলে সবার কণ্ঠরোধ করেছেন। ডিজিটাল আইন একটা অগণতান্ত্রিক, একটা অনৈতিক, এমন কোনো আইন হতে পারে না।’

তিনি বলেন, মানুষের মানবাধিকার লঙ্ঘন করার চেয়ে বড় দুর্নীতি আর হতে পারে না। যতক্ষণ পর্যন্ত কেন্দ্রিকতা বন্ধ হবে না, ততক্ষণ পর্যন্ত সমাধান হবে না। ছাত্র অধিকার সংগঠনগুলো এই অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রথম রাস্তায় নামে। কিন্তু তাদের বিরুদ্ধে এমন পদক্ষেপ মেনে নেওয়া যায় না। এ ধরনের কর্মকান্ডের মাধ্যমে সরকার তার নৈতিকতা হারিয়েছে।

ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, ‘দুর্নীতি কোথায় নেই? শিক্ষা বিভাগের ডিজি (মহাপরিচালক) সাহেবও দুর্নীতির অভিযোগে অভিযুক্ত, একটা ড্রাইভারও অভিযুক্ত। অপরদিকে, শিক্ষিত মানুষ, উপাচার্য মহোদয়, ওনার চাকরি হলো রংপুরে থাকেন ঢাকায়। এটা কি দুর্নীতি না? কেন তাদেরকে ঢাকায় থাকতে হবে? এসব দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার না হলে আমাদের সামনে দুর্দিন আসছে।’

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আপনার কিসের ভয়? ঘরের মধ্যে বন্দী থাইকেন না। খালেদা জিয়া অন্যায় করেছে, টাকার হিসাব দেয়নি, তাকে জেলে দিয়েছেন ঠিক আছে। উনি এক জেলে আছেন, আপনি আরেক জেলে আছেন। তাহলে দেশটা চালাবে কে? আজকে আমাদের রাস্তায় নেমে উন্মুক্ত বাতাসে শ্বাস নিতে হবে। উন্মুক্ত বাতাসে শ্বাস নিতে না পারলে মস্তিষ্ক কাজ করবে না।’

জাফরুল্লাহ বলেন, ‘আমরা স্বাধীনতা এনেছি কারও গোলামি করার জন্য না। এটা বঙ্গবন্ধু বুঝেছিলেন। তাই তিনি ১০ জানুয়ারি দেশে ফিরেই বলেছিলেন, ভারতের সৈন্য হটাও। কিন্তু এখন ভারতীয় সৈন্যের পোশাক পরা লোক নেই, কিন্তু সাদা কাপড়ে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। তারা দেশের মৃত্যু, রাজনীতিবিদদের মৃত্যু আমাদের চিন্তা চেতনার মৃত্যু ঘটাচ্ছে।’


Smiley face